বাংলা ইসলামিক এসএমএস [1]

বাংলা ইসলামিক এসএমএস [1]

    পৃষ্ঠা নং: 1







যাকে ভয় করি..!! 
তার নাম হাশর...!!! 
যাকে বিশ্বাস করি..!! 
তার নাম কুরআন...!!! 
যার কাছে আমি ঋণী..!! 
তার নাম মা...!!! 
যাঁকে নেতা মানি...!! 
তিনি হলেন রাসূল (স)...!! 
যার কাছে মাথা নতকরি..!! 
তিনি হলেন আল্লাহ


যেই মন তোমাকে ঘর থেকে মসজিদে নিতে পারে না সেই মন তোমাকে কি করে কবর হতে জান্নাতে নিবে বল।



সামনে আসছে রোজা, হালকা কর গোনাহের বোঝা,যদি কর পাপ চেয়ে নাও মাফ, এসো নিয়ত করি,আজ থেকে সবাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি ...




আজকে হল জুমার দিন। লাগছে ভাল ছাড়বো ঘর, মসজিদে যাবো ১২ টার পর। আকাশে সূর্য দিচ্ছে আলো, জুমার নামায পরতে লাগবে ভালো।




মৃত্যুর জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকো,
কারণ মৃত্যুর দূত তোমার পিছনেই দাঁড়িয়ে আছে।
তার ডাক দেবার পর আর প্রস্তুত হবার সময় থাকে না.





ডান চোখ হতে বাম চোখের দূরত্ব যতটুকু,
মৃত্যু তার চেয়েও নিকটে”

বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ 
(সাঃ)



ঐ ব্যক্তিই প্রকৃত বুদ্ধিমান, 
যে নিজে নত হয়ে অপরকে বড় ভাবে,
আর সে ব্যক্তিই নির্বোধ,

যে সর্বদাই নিজেকে বড় ভাবে।
      হযরত আলী (রাঃ)




হিংসা মানুষকে এমনভাবে ধ্বংস করে ,
যেভাবে মরিচা লোহাকে ধ্বংস করে ।





মুসলমান যখন মসজিদের দিকে রওনা হয়, সে তার ঘরে ফিরে আসা পর্যন্ত তার প্রতি কদমে আল্লাহ একটি নেকী দান করেন এবং একটি করে গোনাহ মোচন করেন।”

            বিশ্বনবী হযরত 
মুহাম্মদ (সাঃ)



                          ধংস তার জন্য
 যার আজকের দিনটা গতকালের চেয়ে উত্তম হলো না।

                           আল কুরআন



        লা ইলাহা ইল্লালাহু মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ (সাঃ)

যে ব্যক্তি কালেমার দাওয়াত মানুষের কাছে পৌঁছে দিবে,
আমি তাকে সাথে করে জান্নাতে নিয়ে যাবো।

                বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সঃ) 







জ্ঞানী ব্যক্তি আগে চিন্তা করে পরে কথা বলে
বোকা ব্যক্তি আগে কথা বলে পরে চিন্তা করে ।

                      হযরত আলী



মানুষের মনের মধ্যে এমনভাবে নিজের জন্য জায়গা করে নাও যেন তুমি মরে গেলে তোমার জন্য তারা দুয়া করে আর বেঁচে থাকলে তোমাকে ভালবাসে। ___ হযরত আলী (রাঃ)





এই রমজান মাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাত্রি হলো লাইলাতুল কদর। হাদিস মোতাবেক রমজানের শেষের দশদিন বেজোড় রাতে লাইলাতুল কদর অন্বেষণ করার কথা বলা হয়েছে। এই জন্য যে মহান আল্লাহ দেখতে চান লাইলাতুল কদরের বরকত ও ফজিলত লাভের উদ্দেশ্যে তার কোন বান্দা বেশি ইবাদত করে। রাসূল সা. এই শেষ দশকে আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করতেন তা নিম্নোক্ত হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। হযরত আয়েশা রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন আমি রাসূল সা. কে লাইলাতুল কদরের কথা জিজ্ঞাসা করলাম, আজ কি দোয়া পাঠ করব? তিনি বললেন নিম্নের দোয়াটি পাঠ করবে: হে আল্লাহ! নিশ্চয়ই তুমি ক্ষমাশীল। তুমি ক্ষমাশীলতাকে ভালবাস। অতএব আমাকে ক্ষমা করো।





হযরত মোহামমদ (সাঃ) বলেছেন২টা জিনিশ কাছে রাখলে কোন দিন বিপদ আসবেনা ১=কোরআন ২=হাদিস , ইহা ১০০% সত্য।





Search Tags:বাংলা ইসলামিক এসএমএস,ইসলামিক এসএমএস










Post a Comment

0 Comments